A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / এক্সক্লুসিভ সংবাদ / প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ৫৯ গার্মেন্ট আজ খুলছে ৪০০ কোটি টাকা ক্ষতি পাঁচ দিনে

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ৫৯ গার্মেন্ট আজ খুলছে ৪০০ কোটি টাকা ক্ষতি পাঁচ দিনে

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ৫৯ গার্মেন্ট আজ খুলছে

৪০০ কোটি টাকা ক্ষতি পাঁচ দিনে

 

আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে টানা পাঁচ দিন বন্ধ থাকার পর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আজ সোমবার খুলছে ৫৯টি তৈরি পোশাক কারখানা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল রবিবার বিজিএমইএ এমন সিদ্ধান্ত জানিয়েছে।

 

 

তৈরি পোশাক কারখানার মালিকদের এই সংগঠন একই সঙ্গে জানিয়েছে, কারখানা বন্ধ থাকা গত পাঁচ দিনের কোনো বেতন শ্রমিকরা পাবে না।

 

 

এদিকে বেতন বৃদ্ধিসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার দাবিতে শ্রমিকদের আন্দোলনের মুখে মালিক কর্তৃপক্ষের বন্ধ ঘোষণা করা এসব কারখানায় প্রতিদিন গড়ে ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৮০ কোটি টাকা। সে হিসাবে গত পাঁচ দিনে ক্ষতির পরিমাণ মোট ৪০০ কোটি টাকা। এ ছাড়া গত ১১ ডিসেম্বর থেকে বেশ কয়েকটি কারখানায় শ্রমিকরা হাজিরা দিয়ে চলে যাওয়ায় উৎপাদন বন্ধ ছিল। এ কারণে ক্ষতি হয়েছে আরো প্রায় ১০০ কোটি টাকার উৎপাদন। সব মিলিয়ে চলমান শ্রমিক অসন্তোষের কারণে মালিকপক্ষের ক্ষতি প্রায় ৫০০ কোটি টাকা।

 

 

মালিকপক্ষ শ্রম আইনের ১৩(১) ধারা অনুযায়ী কারখানা বন্ধ ঘোষণা করায় এই পাঁচ দিনের কোনো বেতন-ভাতা পাবে না শ্রমিকরা। জানা গেছে, বন্ধ ঘোষিত ৫৯টি কারখানায় প্রায় দুই লাখ ৫০ হাজার শ্রমিক কাজ করে।

তারা গড়ে প্রতিদিন ৩০০ টাকা হারে বেতন পায়। সে হিসাবে মালিকপক্ষ ওই পাঁচ দিনের বেতন না দিলে শ্রমিকদের বেতন থেকে কাটা যাবে প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা। একেকজন শ্রমিকের পাঁচ দিনে লোকসান হবে গড়ে দেড় হাজার টাকা। আট থেকে ১০ হাজার টাকা মাসিক বেতনের একজন শ্রমিকের কাছে এই টাকার অঙ্ক অনেক বড় ব্যাপার। এ জন্য শ্রমিক নেতাদের দাবি, কারখানা খোলার ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে মালিকপক্ষ যেন শ্রমিকদের ক্ষতির দিকটি বিবেচনা করে বেতন কর্তন না করে।

আশুলিয়ায় কয়েকটি শ্রমিক সংগঠনের নেতারা গতকাল রবিবার সকালে আন্দোলনরত শ্রমিকদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। শ্রমিকরা জানায়, তারা কাজে ফিরতে চায়। কিন্তু কারখানায় কাজের পরিবেশ এখনো অনুকূলে নয়। আর গত তিন বছরে বাড়িভাড়া ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে বর্তমান বেতনে জীবনধারণ কঠিন হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় বেতন বৃদ্ধির দাবির বিষয়টিও মালিক কর্তৃপক্ষকে ভাবতে হবে। তারা নতুন বেতন কাঠামো তৈরি না হওয়া পর্যন্ত অন্তর্বর্তীকালীন আংশিক সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার জন্য মালিকদের প্রতি আহ্বান জানায়। সে ক্ষেত্রে বার্ষিক ভাতা, টিফিন বিল, হাজিরা বোনাস, নাইট অ্যালাউন্স বাড়িয়ে দেওয়া এবং বাড়িভাড়া বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে রাখার প্রস্তাব তাদের।

বৈঠকে শ্রমিকরা অভিযোগ করে জানায়, কর্মস্থলে পিএম, জিম ও সুপারভাইজারদের হাতে তাদের অনেককে নির্যাতনের শিকার হতে হয়। বিশেষ করে টার্গেট পূরণে শ্রমিকদের অতিরিক্ত চাপে রাখেন এসব পদধারীরা। নারী শ্রমিকদের নানামুখী যৌন হয়রানির শিকার হতে হয় বলেও অভিযোগ তাদের। মিড লেভেল ম্যানেজমেন্টের কাছ থেকে সহনশীল আচরণের দাবি জানায় তারা।

আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরের মমতাজ বেগম কালের কণ্ঠকে বলেন, শ্রমিকরা নানা প্রতিকূলতার মধ্যে কারখানায় কাজ করে। বিশেষ করে বাড়িভাড়া, হাজিরা, বোনাস, নাইট অ্যালাউন্সের মতো বিষয়গুলো নিয়ে তাদের বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। মমতাজ বলেন, বছরে ২০০ টাকা মজুরি বাড়লে বাড়িভাড়া বাড়ে ৫০০ টাকা। এ ছাড়া রাত ১০টার পরও নাইট অ্যালাউন্স দেওয়া হয় না। টিফিন বিল দেয় মাত্র ১৫ থেকে ২০ টাকা।

জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম রনি এ বিষয়ে গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মালিকরা ১৩(১) ধারায় কারখানা বন্ধ করলেও বিজিএমইএর মাধ্যমে আমরা অনুরোধ জানিয়েছি যেন শ্রমিকদের ওই পাঁচ দিনের বেতন কাটা না হয়। আজ (গতকাল) আশুলিয়ায় ফ্যান্টাসি কিংডমের সামনে বন্ধ থাকা কারখানাগুলোর শ্রমিকদের নিয়ে আমরা বৈঠক করেছি। তারা বিষয়টি নিয়ে আমাদের কাছে উদ্বেগ জানিয়েছে। আমরা শ্রমিকদের আশ্বস্ত করেছি, তাদের পাঁচ দিনের বেতন না কাটতে মালিকপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। ’

ছয় শ্রমিক গ্রেপ্তার : এদিকে গত শনিবার গভীর রাতে আশুলিয়ার সিনসিন মোড় এলাকা থেকে তৈরি পোশাক কারখানার ছয় শ্রমিককে গ্রেপ্তার করেছে আশুলিয়া থানার পুলিশ। তাঁদের মধ্যে একজন জাগো বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের আশুলিয়ার আঞ্চলিক নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন। অন্যরা হলেন এনআরএন গার্মেন্টের শ্রমিক আশিক, রাশেদ, রাবিক, বিল্লাল ও হোসেন।

তৈরি পোশাক কারখানাগুলো খুলছে আজ : পাঁচ দিন বন্ধ থাকার পর আজ সোমবার সকাল ৮টা থেকে খুলছে আশুলিয়ার বন্ধ তৈরি পোশাক কারখানাগুলো। গতকাল বিজিএমইএ ভবনে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন সংগঠনটির সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। এর আগে বিকেলে বিজিএমইএর একটি প্রতিনিধিদল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত্ করে।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বন্ধ গার্মেন্ট কারখানাগুলো খুলে দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। ৩০টি শ্রমিক সংগঠনও বিজিএমইএতে লিখিত আবেদন জানিয়েছে কারখানাগুলো খুলে দিতে। একই সঙ্গে সার্বিক অর্থনীতির দিক বিবেচনা করে আশুলিয়ায় যে ৫৯টি গার্মেন্ট কারখানা শ্রম আইনের ১৩(১) ধারায় বন্ধ রয়েছে সেগুলোর মালিকদের অনুরোধ জানাচ্ছি, কারখানা খুলে দিন। একই সঙ্গে শ্রমিকদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি নিজ নিজ কারখানায় কাজে যোগ দিন এবং উৎপাদন সচল রাখুন। ’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, কারখানাগুলো ১৩(১) ধারায় বন্ধ থাকায় ওই পাঁচ দিনের মজুরি শ্রমিকরা পাবে না। তবে আশুলিয়া এলাকায় আগামী তিন বছর বাড়িভাড়া না বাড়ানোর যে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে সেটি বলবত্ থাকবে। অর্থাত্ আগামী তিন বছর আশুলিয়া এলাকায় বাড়িভাড়া বাড়ানো হবে না।

গতকালের সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আনোয়ারুল আলম চৌধুরী পারভেজ, আব্দুস সালাম মুর্শেদী, বর্তমান সহসভাপতি মোহাম্মদ নাসির, মাহমুদ হাসান খান বাবু প্রমুখ।

Check Also

ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেয়েরা কি করে দেখুন , নিজের চোখ কে বিশ্বাস করতে পারবেন না

ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেয়েরা কি করে দেখুন , নিজের চোখ কে বিশ্বাস করতে পারবেন না …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *